সকল মেনু

আইপিওর ৬২ কোটি টাকার কাঁচামাল কিনছে এনার্জিপ্যাক

সিনিয়র রিপোর্টার : এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেডের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) অর্থ ব্যবহারের সংশোধনীর অনুমোদন দিয়ে চিঠি পাঠিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। সম্প্রতি এই চিঠি কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালককে পাঠিয়েছে বিষয়টি ডিএসই ও সিএসই স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তাদের জানায় কমিশন।

এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেড সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ ২ কোটি ১ লাখ ৪৬ হাজার ৮০০টি সাধারণ শেয়ার ৩১ টাকা মূল্যে (প্রান্ত সীমা থেকে ১০ শতাংশ) ইস্যু করে ৬২ কোটি ৪৫ লাখ ৫০ হাজার ৮০০ টাকা তুলে নেয়। অর্থ উত্তোলনের মাধ্যমে তালিকাভুক্তির পর কোম্পানিটি ২০২১ সালের ১৯ জানুয়ারি থেকে শেয়ারবাজারে লেনদেন শুরু করে।

তালিকাভুক্তির পর আইপিও অর্থ ব্যবহারের সংশোধনী এনে কোম্পানিটি গত ১৫ ডিসেম্বর বিএসইসি বরাবর আবেদন দিলে সেই প্রেক্ষিতে এ অনুমোদন দিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

বিএসইসির চিঠিতে বলা হয়েছে, আইপিও অর্থ দিয়ে জাপান, চীন ও ভারত থেকে উপকরণ সংগ্রহ করতে পারবে। সেই সাথে এলপিজি শিল্পে কোম্পানির বাজার মূলধন বাড়ানোর জন্য রোড ট্যাঙ্কারের পরিবর্তে স্ট্যান্ডার্ড ভালভসহ সহজলভ্য খালি এলপিজি স্টিল সিলিন্ডার, রোড ট্যাঙ্কারের জন্য প্রাইম মুভার এবং ববটেল ট্যাঙ্কার আমদানি করতে পারবে।

এছাড়া ব্যবসার উদ্দেশ্যে আইপিও অ্যাকাউন্ট থেকে কোম্পানির নিয়মিত অ্যাকাউন্টে আইপিওর অবশিষ্ট অর্থ স্থানান্তর করার অনুমোদন দেয়া হয়।

চলতি ২০২১-২২ হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫৩ পয়সা। গত বছর একই সময়ে ৪৮ পয়সা আয় হয়েছিল।

হিসাববছরের প্রথম দুই প্রান্তিক মিলিয়ে তথা ৬ মাসে (জুলাই’২১-ডিসেম্বর’২১) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি সমন্বিত আয় হয়েছে ১ টাকা ০২ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে ছিল ৯২ পয়সা।

গত ৩১ ডিসেম্বর, ২০২১ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি সমন্বিত নিট সম্পদ মূল্য ছিল ৫৮ টাকা ৬২ পয়সা (সম্পদ পুর্নমূল্যায়নের পর)।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, কর্তৃপক্ষ এর দায়ভার নেবে না।

top