সকল মেনু

আইডিআরএ চেয়ারম্যান মোশাররফের পদত্যাগ, যোগ দিলেন জয়নুল বারী

সিনিয়র রিপোর্টার : ক্ষমতার অপব্যবহারসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ ওঠা বিমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের (আইডিআরএ) চেয়ারম্যান ড. এম মোশাররফ হোসেন পদত্যাগ করেছেন। মঙ্গলবার (১৪ জুন) তিনি অর্থমন্ত্রণালয়ে পদত্যাগপত্র জমা দেন। মন্ত্রণালয় তার পদত্যাগপত্র গ্রহণও করেছে।

বুধবার (১৫ জুন) যেকোনো সময় আইডিআরএ চেয়ারম্যানের পদ থেকে এম মোশাররফ হোসেনের পদত্যাগ-সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করা হবে। সেই সঙ্গে আইডিআরএ’র নতুন চেয়ারম্যান নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

তার স্থলে অভিষিক্ত হয়েছেন সরকারের সাবেক আমলা মোহাম্মদ জয়নুল বারী। আইডিআরএ’র নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার আগে সর্বশেষ তিনি সরকারের পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সচিবের দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

বুধবার (১৫ জুন) অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ জয়নুল বারীর নিয়োগের প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে মঙ্গলবার আইডিআরএ’র চেয়ারম্যান পদ থেকে ড. এম মোশাররফ হোসেন পদত্যাগ করেছেন। বুধবার তার পদ শূন্য ঘোষণা করে নির্দেশনা জারি করা হবে।

ড. এম মোশাররফ হোসেন ২০১৮ সালের ৪ এপ্রিল আইডিআরএ’র সদস্য (লাইফ) হিসেবে নিয়োগ পান। এরপর ২০২০ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর তাকে তিন বছরের জন্য সংস্থাটির চেয়ারম্যান নিযুক্ত করে অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ। সে হিসেবে ২০২৩ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর তার মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা। তবে মেয়াদ শেষ হওয়ার এক বছর আগেই তিনি পদত্যাগ করলেন।

আইডিআরএ’র চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পাওয়ার পর এম মোশাররফ হোসেনের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ ওঠে। চেয়ারম্যানের ভারপ্রাপ্ত দায়িত্ব পেয়েই ক্ষমতার অপব্যবহার করে অযোগ্য বক্তিকে একটি বিমা কোম্পানির মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা (সিএই) হিসেবে নিয়োগ দেন মোশাররফ হোসেন।

এছাড়া, চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পেয়েই ডেল্টা লাইফ নিয়ে বিতর্কে জড়ান তিনি। ২০২০ সালের ৮ ডিসেম্বর ডেল্টা লাইফের পক্ষ থেকে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) অভিযোগ করা হয়, আইডিআরএ চেয়ারম্যান এম মোশাররফ হোসেন ৫০ লাখ টাকা ঘুস দাবি করেছে। দুদকে অভিযোগ করার পর ২০২১ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি সংবাদ সম্মেলন করেও একই অভিযোগ করা হয়। এই সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ডেল্টা লাইফের সাবেক সিইও আদিবা রহমান।

ডেল্টা লাইফ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে এমন অভিযোগ করার এক সপ্তাহের মাথায় ১১ ফেব্রুয়ারি কোম্পানিটিতে প্রশাসক নিয়োগ দেয় আইডিআরএ। আইডিআরের সাবেক সদস্য সুলতান-উল-আবেদীন মোল্লাকে প্রথম প্রশাসক নিয়োগ দেয়া হয়। ৪ মাস না যেতেই গত বছরের জুনে তার নিয়োগ বাতিল করে নতুন প্রশাসক নিয়োগ দেয়া হয়। দ্বিতীয় প্রশাসক নিয়োগ দেয়া হয় সরকারের সাবেক যুগ্ম সচিব মো. রফিকুল ইসলামকে।

এম মোশাররফ হোসেনের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে শেয়ার ব্যবসা করার অভিযোগও রয়েছে। একদিকে তিনি কাগুজে প্রতিষ্ঠানের নামে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) কোটা সুবিধা নিয়ে শেয়ার কেনেন, অন্যদিকে, তিনি বিমা খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থার প্রধান হয়েও বিভিন্ন বিমা কোম্পানির শেয়ার কিনেছেন। এমন কিছু কোম্পানির শেয়ারে তার বিনিয়োগ ছিল, যেগুলোর দাম অস্বাভাবিক হারে বাড়ে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, কর্তৃপক্ষ এর দায়ভার নেবে না।

top