Homeআইপিওফের আইপিও আবেদনের প্রস্তুতি নিচ্ছে লঙ্কান অ্যালায়েন্স ফাইন্যান্স

ফের আইপিও আবেদনের প্রস্তুতি নিচ্ছে লঙ্কান অ্যালায়েন্স ফাইন্যান্স

সিনিয়র রিপোর্টার: সিকিউরিটিজ নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠান লঙ্কান অ্যালায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডকে প্রাথমিক পাবলিক অফারের (আইপিও)  আবেদন ফের আবেদন জমা দিতে হবে। স্টক ডিভিডেন্ড ইস্যু করার মাধ্যমে শেয়ারের সংখ্যা বাড়িয়েছে, যে কারণে নতুন করে শেয়ার সংখ্যা নির্ধারণ করে আবেদন করতে হবে।

২০২২ সালে লঙ্কান অ্যালায়েন্স ফাইন্যান্স ৫% স্টক ডিভিডেন্ড ও ৫% নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে।

নতুন প্রজন্মের নন-ব্যাংকিং বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান (এনবিএফআই) কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বিভিন্ন প্রয়োজনী শর্তপূরণ কারার পর চলতি বছরের এপ্রিল মাসে আইপিওর মাধ্যমে ৩০ কোটি টাকা সংগ্রহের জন্য আবেদন করে।

বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক রেজাউল করিম বলেন, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) হালনাগাদ হিসাবসহ পুনরায় জমা দিতে বলা হয়।

শর্তপূরণ করে ‘ফের আবেদন জমা দেওয়ার পরিকল্পনা করছে’ বলে প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে।

লঙ্কান অ্যালায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেড বাংলাদেশে বহুজাতিক সহযোগিতাসহ একটি যৌথ উদ্যোগের আর্থিক প্রতিষ্ঠান, যা বাংলাদেশ ব্যাংকের লাইসেন্সপ্রাপ্ত।

লঙ্কান অ্যালায়েন্স ফাইন্যান্সের বেশিরভাগ স্টেকহোল্ডার হচ্ছে পিপলস লিজিং কোম্পানি এবং শ্রীলঙ্কার বৃহত্তম রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংক পিপলস ব্যাংকের সহযোগী প্রতিষ্ঠান।

স্থানীয় পৃষ্ঠপোষকদের মধ্যে রয়েছে সামিট গ্রুপ, র‌্যাংগস গ্রুপ, অ্যালায়েন্স হোল্ডিংস লিমিটেড, গ্রীন ডেল্টা ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড এবং কনসেপ্ট নিটিং।

২০০৩ সালে অ্যালায়েন্স লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স কোম্পানি লিমিটেড গঠন এবং একই বছরে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ব্যবসায়িক লাইসেন্স পাওয়ার পর ২০১৮ সালে এর নাম পরিবর্তন করে লঙ্কান অ্যালায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেড করা হয়।

গত বছরের ২৮ ডিসেম্বরে সাধারণ সভায় প্রতিষ্ঠানটির নাম পরিবর্তন করে অ্যালায়েন্স ফাইন্যান্স পিএলসি করে এবং নাম পরিবর্তনের প্রক্রিয়াটি এখনও সম্পূর্ণ হয়নি।

কোম্পানির ঋণ এবং অগ্রিম ২০২২ সালের শেষে ৩১৪ কোটি টাকায় বেড়েছে, যা ২০১৮ সালে ১০৮ টাকা থেকে মাত্র ০.২৪% নন-পারফর্মিং ঋণ হয়েছে।

এই সময়ের মধ্যে কর-পরবর্তী নিট মুনাফা ২.৯৭ কোটি টাকা থেকে বেড়ে ৫.১৮ কোটি টাকা হয়েছে।

১০০ কোটি টাকার প্রাক-স্টক লভ্যাংশ পরিশোধিত মূলধন বিবেচনা করে, ২০২২ সালের জন্য এর শেয়ার প্রতি আয় ০.৫২ টাকায় দাঁড়িয়েছে।

২০২২-এর শেষে শেয়ার প্রতি ১২.৭৫ টাকা অভিহিত মূল্যের বিপরীতে ১০ টাকায় নিট সম্পদের মূল্য দাঁড়ায়।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সাত দিনের সর্বাধিক পঠিত