সকল মেনু

৮ হাজার কোটি টাকার শেয়ার ইস্যু করবে পাওয়ারগ্রিড

স্টাফ রিপোর্টার: রাষ্ট্রায়ত্ত বিদ্যুৎ সঞ্চালন প্রতিষ্ঠান পাওয়ারগ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ (পিজিসিবি) লিমিটেডের পর্ষদ বিদ্যুৎ বিভাগের অনুকূলে শেয়ার মানি ডিপোজিটের বিপরীতে ৮ হাজার কোটি টাকার বেশি মূল্যমানের সাধারণ ও প্রেফারেন্স শেয়ার ইস্যু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

কোম্পানিটি ইকুইটি হিসেবে বিদ্যুৎ বিভাগের কাছ থেকে এ অর্থের সমপরিমাণ টাকা নিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করেছে। এবার সে অর্থের বিপরীতে বিদ্যুৎ বিভাগের সচিবের অনুকূলে শেয়ার ইস্যু করতে চায়। পাশাপাশি পর্ষদ কোম্পানির অনুমোদিত মূলধন ৫ হাজার কোটি বাড়িয়ে ১৫ হাজার কোটি টাকায় উন্নীত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এসব বিষয়ে শেয়ারহোল্ডারদের অনুমোদন নিতে বিশেষ সাধারণ সভা (ইজিএম) আহ্বান করেছে কোম্পানিটি। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) মাধ্যমে এ তথ্য জানিয়েছে তালিকাভুক্ত বিদ্যুৎ খাতের কোম্পানিটি।

তথ্য অনুসারে, পাওয়ারগ্রিডের পর্ষদ বিদ্যুৎ বিভাগের অনুকূলে শেয়ার মানি ডিপোজিটের বিপরীতে ১০ টাকা প্রিমিয়ামসহ ২০ কোটি ১০ লাখ ৮০ হাজার সাধারণ শেয়ার এবং ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের ৭৬৪ কোটি ১১ লাখ ৬ হাজার ২৩টি প্রেফারেন্স শেয়ার ইস্যুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অর্থাৎ কোম্পানিটি যথাক্রমে ৪০২ কোটি ১৬ লাখ টাকার সাধারণ শেয়ার ও ৭ হাজার ৬৪১ কোটি ১০ লাখ ৬০ হাজার ২৩০ টাকার প্রেফারেন্স শেয়ার ইস্যু করবে। এর মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিভাগের সচিবের অনুকূলে মোট ৮ হাজার ৪৩ কোটি ২৬ লাখ ৬০ হাজার ২৩০ টাকার শেয়ার ইস্যু করতে চায় কোম্পানিটি।

এছাড়া কোম্পানির বর্তমান অনুমোদিত মূলধন ১০ হাজার কোটি থেকে বাড়িয়ে ১৫ হাজার কোটি টাকায় উন্নীত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে কোম্পানিটি ১০ টাকা মূল্যে ১ হাজার ৩০০ কোটি প্রেফারেন্স শেয়ারের বিপরীতে ১৩ হাজার কোটি টাকা এবং ১০ টাকা মূল্যে ২০০ কোটি সাধারণ শেয়ারের বিপরীতে ২ হাজার কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনে উন্নীত হবে। এ-সংশ্লিষ্ট সংঘবিধি ও সংঘস্মারকেও সংশোধন আনবে কোম্পানিটি।

এসব বিষয়ে শেয়ারহোল্ডারদের সম্মতি নিতে আগামী ২ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় ভার্চুয়াল মাধ্যমে ইজিএম আহ্বান করেছে কোম্পানিটি। এ-সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ১৩ জুলাই।

সর্বশেষ অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে, চলতি ২০২২-২৩ হিসাব বছরের প্রথম তিন প্রান্তিকে (জুলাই-মার্চ) পিজিসিবির শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ৪ টাকা ৬৬ পয়সা। আগের হিসাব বছরের একই সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছিল ৩ টাকা ৯২ পয়সা।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, কর্তৃপক্ষ এর দায়ভার নেবে না।

top