সকল মেনু

বেক্সিমকো গ্রুপের পরে পুঁজিবাজারে আসছে আরেক সুকুক বন্ড

স্টাফ রিপোর্টার: পুঁজিবাজারে প্রথম সুকুক বন্ড ছেড়ে তিন হাজার কোটি টাকা তুলেছে বেক্সিমকো গ্রুপ। এই বন্ডটি শেয়ারে রূপান্তরযোগ্য। তবে বঙ্গ বিল্ডিং ম্যাটেরিয়াল যে ৩০০ কোটি টাকা তুলতে যাচ্ছে, সেটিকে শেয়ারে রূপান্তর করা যাবে না।

পুঁজিবাজারে আরও একটি সুকুক বন্ড তালিকাভুক্ত হতে যাচ্ছে। তালিকাভুক্ত কোম্পানি আরএফএল গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান বঙ্গ বিল্ডিং ম্যাটেরিয়ালকে এই বন্ড ছেড়ে ৩০০ কোটি টাকা তোলার অনুমোদন দিয়েছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি।

বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সুকুকটি হবে হবে সিকিউরড অর্থাৎ এটি ছাড়তে জামানত জমা দেয়া হবে। এটি হবে নন কনভার্টাইবেল অর্থাৎ শেয়ারে রূপান্তর করা যাবে না। মেয়াদ শেষে পুরো টাকা ফেরত দেয়া হবে।

ছবিটি বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তির একাংশ।

এর মুনাফার হার হবে ৮ শতাংশ থেকে ১১ শতাংশের মধ্যে। এর মেয়াদ হবে ৬ বছর। এর গ্রেস প্রিরিয়ডও থাকবে, তবে সেটি কত দিনের তা বলা হয়নি।

পুঁজিবাজারে প্রথম সুকুক বন্ড ছেড়ে তিন হাজার কোটি টাকা তুলেছে বেক্সিমকো গ্রুপ। এই বন্ডটি শেয়ারে রূপান্তরযোগ্য। বন্ডের ন্যূনতম মুনাফা হবে ৯ শতাংশ। আর মূল প্রতিষ্ঠান বেক্সিমকো লিমিটেডের লভ্যাংশ ১০ শতাংশের যত বেশি হবে, সেই বেশি অংশের ১০ শতাংশ সুকুকের মুনাফায় যুক্ত হবে।

বন্ড বিনিয়োগের ২০ শতাংশ প্রতি বছর তুলে নেয়া যাবে। বিনিয়োগকারী এ ক্ষেত্রে নগদেও টাকা নিতে পারবে, আবার বেক্সিমকো লিমিটেডের শেয়ারও কিনতে পারবে। এ ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারী শেয়ার পাবে ২৫ শতাংশ কম দামে।

১০০ টাকা অভিহিত মূল্যের প্রতিটি বন্ডের বিপরীতে এরই মধ্যে ষাস্মাষিক হিসেবে ৫ দশমিক ৮ শতাংশ মুনাফা দিয়েছে। তবে তালিকাভুক্ত হওয়ার পর এটি অভিহিত মূল্যের নিচে নেমে গেছে। বর্তমানে ১০০ টাকার বন্ডের বাজার দর ৮৭ টাকা ৫০ পয়সা।

বঙ্গ বিল্ডিং যে সুকুক ছাড়তে যাচ্ছে, সেটি অবশ্য মূল বাজারে নয়, লেনদেন হবে অলটারনেটিভ ট্রেডিং বোর্ড বা এটিবিতে। এই বোর্ড শিগগির চালু হতে যাচ্ছে।

বেক্সিমকোর সুকুক সাধারণ বিনিয়োগকারীরাও কিনতে পেরেছেন। তবে দ্বিতীয় বন্ডটি প্রাইভেট প্লেসমেন্টের মাধ্যমে কেবল ব্যাংকের কাছে বিক্রি করা যাবে।

এর প্রতি ইউনিটের দাম হবে ৫ হাজার টাকা। প্রতি লটে থাকবে ২০টি। লটের দাম হবে এক লাখ টাকা।

৩০০ কোটি টাকার একাংশ দিয়ে কোম্পানির মেশিনারিজ মেরামত করা হবে। বাকি অর্থে কেনা হবে নতুন মেশিনারিজ।

বন্ডটির ট্রাস্টি ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ক্যাপিটাল অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট। লিড অ্যারেঞ্জার সিটি ব্যাংক ক্যাপিটাল রিসোর্স লিমিটেড

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, কর্তৃপক্ষ এর দায়ভার নেবে না।

top